প্রথম ভারতীয় মহিলা রেলচালকের অজানা কিছু তথ্য

যে রাঁধে, সে চুলও বাঁধে। মেয়েদের ক্ষেত্রে অবশ্যই প্রযোজ্য। স্বাধীনতাত্তোর যুগে একদিকে কোমর বেঁধে ঘর সামলানো, স্বামীর অফিস, ছেলেমেয়েদের স্কুল আর অন্যদিকে বাইরে সামলানো। মেয়েরা সবেতেই ওস্তাদ। এখনকার নারী বলতে এমনটাই বোঝায়। কিন্তু একসময় নারীদের ঘরের কাজ সামলানোটাই গুরু দায়িত্ব ছিল। চাকরি-বাকরি করা বা বাইরের কাজ করাকে সমাজ ও পরিবার ভালো চোখে দেখতেন না।

Source

আর গাড়ি চালানো,,,মানেই ছেলেদের প্রফেশন এমন ধারনা গিঁথে ছিল। কিন্তু সেই সময়ে সুরেখা সঙ্কর যাদব মানুষের ভুল ধারনা ভেঙে দিয়ে দেশের একমাত্র মহিলা রেল চালিকা হয়েছিলেন । তিন দশক ধরে সেই পেশাকে সম্মান জানিয়ে আজ তিনি ভারতের প্রথম মহিলা রেল চালক।

Source

১৯৬৫ সালে মহারাষ্ট্রের সাতারাতে সুরেখার যাদবের জন্ম হয়। স্কুল জীবনের পাঠ শেষে ভোকেশনাল ট্রেনিং-এর কোর্সে ভর্তি হন তিনি। তারপর ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং-এ ডিপ্লোমা শেষ করেন। বিএড কোর্স শেষ করার পর শিক্ষকতাকে পেশা হিসেবে বেছে নেওয়ার সময়ই ভারতীয় রেলে সুযোগ আসে। ১৯৮৬ সালে রেল পরীক্ষায় পাশ করে মৌখিক পরীক্ষাই নির্বাচিত হন তিনি।

Source

ট্রেন চালকের প্রশিক্ষন নেওয়ার পর অ্যাসিস্ট্যান্ট ড্রাইভার হিসেবে নিযুক্ত হন ১৯৮৯ সালে।
১৯৮৬ সালে মালবাহী ট্রেনের চালক হিসেবে নিযুক্ত হওয়ার পর ২০০০ সালে পদোন্নতি হয়ে মোটর ওমেন পদে যোগ দেন। ২০১০ সালে ওয়েস্টার্ন ঘাটে রেল চালিকা হওয়ার পর ২০১১ সালে এক্সপ্রেস মেল ড্রাইভার হিসেবে পদ পান সুরেখা যাদব।

Source

দিনে প্রায় দশ ঘন্টা কাজ করেন সুরেখা দেবী। সমগ্র এশিয়ার প্রথম মহিলা রেল চালক হিসেবে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে ডাক পান তিনি। দুচাকা বা চার চাকা চালানোয় কোনো অভিজ্ঞতা না থাকলেও আজ তিনি দেশের প্রথম দ্রুতগামী যানের চালিকা হতে পেরেছেন।

Source

কথাতেই আছে পরিশ্রম ও চেষ্টার ফল একদিন ঠিক পাওয়া যায়। সুরভী যাদবের চেষ্টা ও জেদ, অধ্যাবসায় আজ তাঁকে খ্যাতির শীর্ষে পৌঁছেছে। মহিলারাদেরও যে পরিবারের বাইরে অনেক দায়িত্ব তা তৎকালীন সমাজকে ভালোভাবে বোঝাতে পেরেছেন।

Source

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!
Inline
Inline