টিকটিকি তাড়ানোর কয়েকটি ঘরোয়া উপায়

সকাল কি সন্ধ্যে টিকটিকিদের জ্বালায় জীবন অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। বিশেষ করে টিকটিকির মলত্যাগ। এই নিয়ে তো সমস্যার শেষ নেই। বাচ্চাদের কাছ থেকে এগুলি দূরে রাখতেই তো আরও সমস্যা। সন্ধ্যে বেলায় টিকটিকিদের উপদ্রব আরও বেশি হয়ন ডিমের খোসা লাগিয়েও মিলছে না কোনো উপকার। তাই এই গুলি একবার করে দেখুন। উপকার মিলবেই-

Image Source

১. কফি পাউডার- কফির পাউডারের সঙ্গে টোবাকো পাউডার মিশিয়ে গুলির মতো তৈরি করুন। এরপর সেগুলি মাজনে লাগিয়ে দিন। এবং সেটি নিয়ে টিকিটিকি যাতায়াতের পথে আটকে দিন। উপকার পাবেনই।

২. ন্যাপথলিন- ন্যাপথলিন গুলিকে জলে ডুবিয়ে বা আগুনে একটু পুরিয়ে রাখুন। টিকটিকি নিমেষে উধাও হয়ে যাবে।

৩. ময়ূরের পালক- ময়ূরের পালক দেওয়ালে আটকে রাখুনন এদের টিকটিকিরা ভয় পায়। এবং দেখেই পালাবে।

৪. পিপার মিশ্রন- জল ও পিপার দিয়ে মিশ্রন তৈরি করে স্প্রে বানান। সেটি আলোর নীচে, দেওয়ালের কোনে নিয়মিত স্প্রে করে দিন। টিকটিকি ভয়েই পালাবে।

৫. বরফ টুকরের জল- বরফ জলের মিশ্রন টিকটিকির গায়ে ছিটিয়ে দিন। এতে বডির তাপমাত্রা কমবে এবং টিকটিকি গুটিয়ে যাবে।

৬. সস-  স্প্রে বোতলে সস মিশিয়ে ঝাঁকিয়ে নিন। চিকিটিকি থাকে এমন এলাকায় ছড়িয়ে দিন। টিকটিকি আর জীবনে আসবে না।

৭. পেঁয়াজ- পেঁয়াজের রসে এমনিতেই চোখ জ্বালা করে। পেঁয়াড কেটে দেওয়াল বা টিকিটিকি আসে এমন জায়গায় লাগিয়ে রাখুন।

৮. রসুন- একটি স্প্রে বোতলে পেঁয়াজের রস, রসুনের রস এবং জল মিশিয়ে টিকিটিকি থাকার স্থান ও আসার জায়গা বা দেওয়ালে স্প্রে করে দিন।

৯. অন্যান্য উপায়- মেটালের পর্দা দিয়ে জানালা ঘিরে ফেলুন কিংবা ফাটা জায়গা দিয়ে টিকটিকি বেশি আসে তাই সেগুলি বন্ধ করে টিকিটিকি আসার পথ বন্ধ করে দিন।

এই প্রতিবেদনটি ভালো লাগলে পোস্টটি লাইক ও শেয়ার করুন। যে কোনো প্রয়োজনে কমেন্ট করে জানাতে পারেন। আরো পোস্ট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ পশ্চিমবঙ্গ 24×7

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!
Inline
Inline